এক নজরে হাজি সাহেব হুজুরের জীবন ও অন্তিম যাত্রা 

দেশের শীর্ষ আলেম, লালবাগ মাদরাসার শায়খুল হাদীস ও মজলিসে শুরার ছদর হযরত মাওলানা হাবীবুর রহমান হাজী সাহেব হুজুর আজ ২২ নভেম্বর রাত ১২টা ২০ মিনিটে রাজধানী ঢাকার আজগর আলী হাসপাতালে ইন্তেকাল করেছেন। ইন্নানিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।

গত ১৬ নভেম্বর সকাল ১০টা লালবাগ মাদরাসা থেকে ওমরা হজ্জ পালনের উদ্দেশ্যে ইহরামের কাপড় পড়ে হযরত শাহ জালাল আন্তর্জাতিক বিমান বন্দরে গেলে সেখানেই তিনি মারাত্মক অসুস্থ হয়ে পড়েন।

তাৎক্ষণিক তাঁকে ইসলামী ব্যাংক সেন্ট্রাল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। স্বাস্থ্যের অবনতি হওয়ায় ওই দিন রাত দুইটায় উন্নত চিকিৎসার জন্য গেন্ডারিয়ার আজগর আলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় ৮৪ বছর বয়সে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

মরহুমের মৃত্যুতে তার হাজার হাজার ছাত্র, ভক্ত, অনুরক্ত ও আলেম ওলামাদের মাঝে নেমে আসে শোকের ছায়া।

জন্ম ও বেড়ে ওঠা 

১৯৩৮ খ্রি. সনে মুন্সীগঞ্জ জেলার টঙ্গীবাড়ী বেতকা গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত মুসলিম পরিবারে তার জন্ম। ১৯৬০ খ্রি. সনে এস. এস. সি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হয়ে তিনি স্থানীয় আব্দুল্লাহপুর কাসিমুল উলূম মাদরাসায় ধর্মীয়, প্রাথমিক ও মাধ্যমিক শিক্ষা অর্জন করেন। এরপর ১৯৬৪ সনে উচ্চতর ইসলামী জ্ঞান অর্জনের জন্য তিনি ভর্তি হন জামেয়া কোরআনিয়া আরাবিয়া লালবাগ মাদরাসায়। লেখাপড়া শেষ করে ১৯৭৩ খ্রি. সনে তিনি লালবাগ মাদরাসার শিক্ষক নিয়োগ হন।

কর্মজীবন

হাজি সাহেব হুজুর তাঁর সারাটা জীবনই লালবাগ মাদরাসায় ইলমে দ্বীনের খেদমতে অতিবাহিত করেছেন। নিরবভাবে তিনি দ্বীনের খেদমতে নিজের জীবনকে অকাতরে বিলিয়ে দিয়েছেন।

দীর্ঘ ৫৩ বছর ধরে নিরবিচ্ছন্নভাবে তিনি লালবাগ মাদরাসার দায়িত্ব পালন করে গেছেন। তিনি ২০১২ সাল থেকে লালবাগ মাদরাসার শায়খুল হাদীস ও ২০২১ সালের ৭ জানুয়ারী থেকে মজলিসে শুরার ছদর নিযুক্ত হয়ে অত্যন্ত সুনামের সঙ্গে তার দায়িত্ব পালন করে গেছেন।

তিনি ছিলেন ছাত্রদের জন্য একজন আদর্শ শিক্ষক। তাঁর শিক্ষাদান পদ্ধতি ছিল অতুলনীয় নজিরবিহীন। তাঁর হাজার হাজার ছাত্র দেশ-বিদেশে সুনামের সাথে ইসলামের বিভিন্ন সেক্টরে দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছেন।

তিনি ৪ ছেলে, এক মেয়ে ও সহধর্মিনীসহ হাজার হাজার ভক্ত-অনুরক্ত রেখে আল্লাহর ডাকে সাড়া দিয়েছেন। তিনি হযরত হাফেজ্জী হুজুর (রহ.) এর বড় মেয়ের নাতিন জামাই ছিলেন। ১০ ভাই তিন বোনের মাঝে তিনি ছিলেন সপ্তম। কর্মজীবনে তিনি লালবাগ মাদরাসা ছাড়া ইসলামবাগ বায়তুল আমান মসজিদের ইমাম ও খতীবের দায়িত্ব পালন করেন। লালবাগ শাহী মসজিদে শনিবার বাদ এশা বুখারী শরীফের দরস দিতেন। আমৃত্যু কিল্লারমোড় টেম্পু স্ট্যান্ড মসজিদের খুতীব ও মুন্সীগঞ্জ আব্দুল্লাহপুর, আমলীগোলা শরীফুল উলুম মাদরাসার অভিভাবকসহ বিভিন্ন দ্বীনি প্রতিষ্ঠানের সাথে জড়িত ছিলেন।

প্রসিদ্ধ শিক্ষক

আমীরে শরীয়ত হযরত মাওলানা মুহাম্মদুল্লাহ হাফেজ্জী হুজুর, মাওলানা হেদায়াতুল্লাহ, মুফতী আব্দুল মুঈয, মাওলানা আব্দুল মজিদ ঢাকুবী হুজুর রহ.-এর মত যুগশ্রেষ্ঠ আলেমগণ ছিলেন তাঁর হাদীসের উস্তাদ।

তিনি বেশ কয়েকবার হজ্জব্রত পালন করেছেন। ছাত্র অবস্থায় হজ্জ পালনের কারণে তিনি হাজী সাহেব হুজুর নামে খ্যাতি লাভ করেন। হযরত মাওলানা জাফর আহমদ উসমানী ও হযরত মাওলানা সায়্যিদ মোস্তাফা আল মাদানী রহ.-এর বিশেষ সহচার্যপ্রাপ্ত ছিলেন তিনি।

অন্তিম যাত্রা

২২ নভেম্বর (মঙ্গলবার) বাদ যোহর হাজার হাজার ছাত্র, ভক্ত, অনুরক্ত ও এলাকার ধর্মপ্রাণ মুসল্লীদের উপস্থিতিতে মরহুমের বড় ছেলে হাফেজ মাওলানা ইবরাহীম হাবীবের ইমামতিতে তার বিশাল জানাযার নামায অনুষ্ঠিত হয়। জানাযা নামায শেষে মাদরাসার পাশেই লালবাগ শাহী মসজিদের গোরস্থানে শহীদ আল্লামা সায়্যিদ মোস্তফা আল মাদানী রহ.-এর কবরে তাঁকে সমাহিত করা হয়।

জানাযায় উপস্থিতি 

জানাযার দৃশ্য

 

জানাযায় দেশের শীর্ষ উলামায়ে কেরামের মাঝে উপস্থিত ছিলেন- জামিয়া মোহাম্মদিয়ার মুহতামিম মাওলানা আবুল কালাম, লালবাগ মাদরাসার শায়খুল হাদীস হযরত মাওলানা আব্দুল হাই, প্রিন্সিপাল মাওলানা মুহিব্বুল্লাহ, সিনিয়র মুহাদ্দিস মাওলানা আব্দুল রহিম, ভাইস প্রিন্সিপাল ও মজলিসে শুরার নবনিযুক্ত ছদর মুফতী ইয়াহইয়া, ভাইস প্রিন্সিপাল মুফতী ফয়জুল্লাহ, মারকাযুদ দাওয়া আল ইসলামিয়ার শিক্ষা সচিব মুফতী আব্দুল মালেক, ইসলামী ঐক্যজোটের চেয়ারম্যান মাওলানা আবুল হাসানাত আমিনী, ইসলামবাগ মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা মঞ্জুরুল ইসলাম আফেন্দী, মুফতী মুহাম্মদ তৈয়্যেব হোসাইন, জাতীয় ইমাম সমাজের মহাসচিব মাওলানা মিনহাজ উদ্দীন, মাওলানা মহিউদ্দীন রাব্বানী, ক্বারী আহমদ বিন ইউসুফ আল আজহারী, মাওলানা আলতাফ হোসাইন, হাফেজ মাওলানা খালেদ, মাওলানা সাইফুল ইসলাম, মাওলানা যুবায়ের আহমদ, মাওলানা আনসারুল হক ইমরানসহ লালবাগ মাদরাসার সকল আসাতিযায়ে কেরাম, ছাত্র ও ঢাকা মহানগরীর বিভিন্ন মাদরাসার শিক্ষক, ছাত্রসহ সারাদেশ থেকে আগত তাঁর ছাত্র, ভক্ত, মুরীদানসহ এলাকার ধর্মপ্রাণ ও সর্বস্তরের হাজার হাজার মুসল্লী অংশ গ্রহণ করেন।

এ জাতীয় আরো সংবাদ

বাগদাদে ফের গোয়েন্দা কর্মকর্তা হত্যা

আনসারুল হক

জেদ্দায় বাংলাদেশ কনস্যুলেটে নতুন কনসাল জেনারেল মোহাম্মদ নাজমুল হক

আনসারুল হক

বইমেলা এবার ১৪ দিন

নূর নিউজ