কাতারে আল নূর সেন্টারের মহিলা বিভাগের কর্মশালা অনুষ্ঠিত

কাতার প্রতিনিধি: আল নূর কালচারাল সেন্টার কাতারের মহাপরিচালক প্রকৌশলী শোয়েব কাসেম বলেছেন, সময় এখন সোশ্যাল মিডিয়ার। এর বহুমুখী উপকারের পাশাপাশি নানাবিধ অপকার ও রয়েছে। মোবাইলের অপব্যবহারে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে পারিবারিক সংহতি। জ্যামিতিক হারে বাড়ছে তালাকের সংখ্যা। তাই এই ব্যাপারে সকলের বিশেষ করে মহিলাদের অধিক সচেতন হতে হবে। গত ২০ জানুয়ারি দোহা ফেমাস রেস্টুরেন্টের হলরুমে আয়োজিত আলনূর কালচারাল সেন্টার মহিলা বিভাগের কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপরোক্ত কথাগুলো বলেন।

কর্মশালায় সভাপতিত্ব করেন আল নূর মহিলা বিভাগের ভারপ্রাপ্ত পরিচালক আলেমা মাহমূদা নূরুল আমিন। প্রধান আলোচক ছিলেন আল নূর নির্বাহী পরিচালক মাওলানা ইউসুফ নূর। বক্তব্য রাখেন আলনূর সেন্টারের গণসংযোগ পরিচালক প্রকৌশলী আলিমুদ্দিন, গবেষণা ও প্রকাশনা পরিচালক অধ্যাপক আমিনুল হক, সমাজকল্যাণ সহযোগী প্রকৌশলী জাহেদুল ইসলাম, সংস্কৃতিক সহকারী মাওলানা জসিমউদ্দিন মাশরুফ, প্রোগ্রাম ম্যানেজার মাওলানা নুরুল আমিন, শিক্ষা বিভাগের সদস্য হাফেজ লোকমান ও মাওলানা মাহমুদুল হক নদবী।

প্রকৌশলী শোয়েব কাসেম বলেন, আজ থেকে এক যুগ পূর্বে কাতারে বাংলাদেশ কমিউনিটির মাঝে শিক্ষা ও সংস্কৃতির আলো ছড়িয়ে দেয়ার উদ্দেশ্যে প্রতিষ্ঠিত আল নূর সেন্টার আল্লাহর কৃপায় এক আস্থাভাজন ও অনুসরণীয় প্রতিষ্ঠানে পরিচিত হয়েছে। আল নূরের এক যুগ পথ পরিক্রমায় মহিলা বিভাগের সদস্যদের অবদান চালিকা শক্তি হিসেবে কাজ করেছে।

প্রধান আলোচক মাওলানা ইউসুফ নূর বলেন, রাসূল সাঃ বলেছেন, নারীরা হলেন পুরুষের সহযোগী ও পরিপুরক। নবী রসুলদের দাওয়াতী জীবন ও সংগ্রামী মিশনে নারীদের অবদান প্রাত:স্মরণীয়। অন্যায় অনাচার মুক্ত পুণ্যময় আদর্শ সমাজ বিনির্মানে মুমিন নর-নারীর যৌথ অংশগ্রহণ সফলতার চাবিকাঠি এটা আল কুরআনের অমর ঘোষণা। অপশক্তি আমাদের শাসন বিচার ও শিক্ষা ব্যবস্থা ধ্বংস করে ও শুধু পারিবারিক বন্ধনের কারণে আমাদের ঈমান হরণ করতে পারে নি। তারা এখন মুসলিম নারীদের আদর্শচ্যুত করে এই বন্ধনকে ও নষ্ট করে দিতে চায়। বিয়ের বয়স নির্ধারণ ও বিধর্মীর সাথে বিয়ে বৈধ করা এই ঘৃণ্য প্রচেষ্টার অংশবিশেষ। এই নব্য জাহেলিয়াতের বিরুদ্ধে জ্ঞানের আলো আদর্শের হাতিয়ার ও মমতার পরশ দিয়ে মুসলিম নারীদের কাজ করে যেতে হবে।আল নূর সেন্টারের মহিলা বিভাগ এ ক্ষেত্রে অগ্রণী ভুমিকা রাখবে ইনশাআল্লাহ।

কর্মশালায় কুরআনে কারীমের হিফজ সম্পন্ন করায় সূয়াইদা ইউসুফ নূর এবং মাওলানা নুরুল আমিনের দুই কন্যা মুনা ও সুন্দুসকে সংবর্ধনা প্রদান করা হয়।

এছাড়াও মহিলা সদস্যদের সর্বসম্মতিক্রমে নাফিসা আহসানকে প্রধান উপদেষ্টা, আলেমা মাহমুদা নুরুল আমিনকে পরিচালক, আলেমা সারা মাহমুদকে সহযোগী পরিচালক ও লৎফুন নাহার ইউসুফকে সহকারী পরিচালক করে ২১ সদস্য বিশিষ্ট আল নূর মহিলা বিভাগের কমিটি গঠন করা এবং কর্মসূচি-২০২১ ঘোষণা করা হয়। মুনাজাত ও নৈশভোজের মধ্য দিয়ে অনুষ্ঠানের সমাপ্তি ঘটে।

এ জাতীয় আরো সংবাদ

মালয়েশিয়ায় বাংলাদেশিসহ ৫১ অবৈধ অভিবাসী আটক

নূর নিউজ

ইউরোপগামী ৩২ বাংলাদেশী উদ্ধার

নূর নিউজ

৬ দিনে সৌদিতে ১০ হাজার অবৈধ অভিবাসী আটক

নূর নিউজ