প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন ছাড়া শ্রীলঙ্কায় আমদানি করা যাবেনা ইসলামী বই

করোনাভাইরাসের সংক্রমণে মারা যাওয়া মুসলিমদের লাশ পোড়ানোর কারণে তীব্র সমালোচনার পর এবার আরো একটি বিতর্কিত সিধান্ত নিয়েছে শ্রীলঙ্কা। প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের অনুমোদন নেই, এমন যেকোনো ইসলামী বই আমদানি নিষিদ্ধ করেছে দেশটি।

এদিকে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খানের সফরের পর শ্রীলঙ্কার সরকার জোর করে লাশ পোড়ানো নীতি থেকে সরে এসেছে। এখন দেশটি করোনায় সংক্রমণে মারা যাওয়া ব্যক্তিদের লাশ একটি জন-বিচ্ছিন্ন দূরবর্তী দ্বীপে কবর দেয়ার অনুমতি দিয়েছে।

এ পদক্ষেপ দেশটিতে তীব্র বিক্ষোভের সূত্রপাত করেছে এবং সরকার ও তামিল মুসলিম সম্প্রদায়ের মধ্যে উত্তেজনা সৃষ্টি করছে।

সম্প্রতি শ্রীলঙ্কা দেশটির মুসলিমদের বিবাহ আইনও বদল করেছে এবং নারীদের নেকাব পরা নিষিদ্ধ করেছে।

দেশটির সরকার মুসলিমদের প্রতি বৈষম্যমূলক আচরণ করার জন্য অভিযুক্ত। যদিও সরকারি কর্মকর্তারা কোনো ধরণের বৈষম্যমূলক আইন প্রবর্তনের কথা অস্বীকার করেছেন।

জাতিসঙ্ঘের মানবাধিকার কাউন্সিল শ্রীলঙ্কায় মানবাধিকার লঙ্ঘনের মতো বিষয়গুলোর ওপর নজর রাখছে বলে জানিয়েছে। ‘ইন্টারন্যাশনাল ক্রাইসিস গ্রুপের’ জ্যেষ্ঠ পরামর্শক এলান কিনানও মুসলিমদের প্রতি বৈষম্যমূলক আচরণের প্রতি গুরুত্ব দিয়েছেন।

সূত্র : দ্যা ইসলামিক ইনফরমেশন

এ জাতীয় আরো সংবাদ

পিএস ফাইভ দেয়ার ঘোষণায় রণক্ষেত্র নিউইয়র্ক

নূর নিউজ

বন্দিদের মুক্তি দিয়ে মিয়ানমারের সেনাবাহিনীকে ক্ষমতা ছাড়ার আহ্বান বাইডেনের

আলাউদ্দিন

সুইডেনে কুরআন পোড়ানোর ঘটনায় হেফাজতের নিন্দা

নূর নিউজ