মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নগদ অর্থের অভাব দেখা দিতে পারে

মার্কিন ট্রেজারি সেক্রেটারি জ্যানেট ইয়েলেন হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেছেন, কংগ্রেস যদি ঋণের সর্বোচ্চ সীমা বাড়াতে বা স্থগিত করতে ব্যর্থ হয় তাহলে ১ জুনের মধ্যে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নগদ অর্থের অভাব দেখা দিতে পারে।
বিবিসির এক প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে প্রকাশ, ঋণের সর্বোচ্চ সীমায় পৌঁছানোর মানে হচ্ছে সরকার আর কোনো টাকা ধার নিতে পারবে না।

ইয়েলেন ৩১ দশমিক ৪ ট্রিলিয়ন ডলারের এই সীমা মোকাবেলা করতে যত তাড়াতাড়ি সম্ভব কাজ করার জন্য কংগ্রেসকে আহ্বান জানিয়েছেন।

দেশটির রাষ্ট্রপতি জো বাইডেন ৯ মে এই বিষয়ে কংগ্রেস নেতাদের সাথে একটি বৈঠক ডেকেছেন। এরআগে, ঋণের সীমা ১৯৬০ সাল থেকে ৭৮ বার বাড়ানো বা সংশোধিত করা হয়েছে। বাইডেন রিপাবলিকানদের প্রস্তাব নিয়ে আলোচনা করার জন্য মার্কিন চেম্বার অফ কংগ্রেসসহ ব্যবসায়িক গোষ্ঠীগুলোর ক্রমবর্ধমান চাপের মধ্যে আছেন৷

বিশেষজ্ঞরা সতর্ক করেছেন, এরকম কিছু যুক্তরাষ্ট্রকে মন্দা এবং ক্রমবর্ধমান বেকারত্বের দিকে নিয়ে যেতে পারে। এর অর্থ এই যে, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সরকারি কর্মচারী এবং সামরিক কর্মীদের বেতন বা সামাজিক নিরাপত্তাসহ অন্যান্য বিষয়ে খরচের জন্য অর্থ ধার করতে পারবে না। এমনকি আবহাওয়ার পূর্বাভাসও শেষ পর্যন্ত প্রভাবিত হতে পারে, কারণ অনেকেই জাতীয় আবহাওয়া পরিষেবার তথ্যর ওপর নির্ভরশীল।

মঙ্গলবার কংগ্রেসের সদস্যদের কাছে দেওয়া এক চিঠিতে ইয়েলেন বলেছেন, আমরা অতীত থেকে শিখেছি যে, ঋণের সীমা স্থগিত বা বাড়ানোর জন্য শেষ মুহূর্ত পর্যন্ত অপেক্ষা করা ব্যবসা এবং ভোক্তাদের আস্থার জন্য মারাত্মক ক্ষতি করতে পারে। এটি করদাতাদের জন্য ঋণের খরচকে বাড়িয়ে তুলে এবং নেতিবাচকভাবে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ক্রেডিট রেটিংকে প্রভাবিত করে।

ইয়েলেন বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে ঠিক কবে নগদ ফুরিয়ে যাবে তা নিশ্চিতভাবে জানা অসম্ভব। তবে জুন মাসের প্রথম দিকে ট্রেজারির তহবিল শেষ হয়ে যাওয়ার একটি ঝুঁকি রয়েছে।

সোমবার একটি যৌথ বিবৃতিতে ডেমোক্র্যাটিক সিনেটের নেতা চাক শুমার এবং হাউস ডেমোক্রেটিক নেতা হাকিম জেফ্রিস বলেছেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একত্রিত হওয়ার জন্য ১ জুন পর্যন্ত অপেক্ষা করার কোনো সুযোগ নেই। আমাদের অর্থনীতি এবং লক্ষ লক্ষ আমেরিকান পরিবারের জন্য ডিফল্ট এড়াতে এবং বিপর্যয়কর পরিস্থিতি রোধ করতে একটি পরিষ্কার বিল পাস করতে হবে।

এ জাতীয় আরো সংবাদ

নিউইয়র্ক সিটি কাউন্সিলে অভিবাসন বিষয়ক কমিটির চেয়ারম্যান বাংলাদেশী শাহানা হানিফ

নূর নিউজ

দেড় লাখ শিক্ষার্থীর ঋণ মওকুফ করলেন জো বাইডেন

নূর নিউজ

কানাডায় ভারতীয় ছাত্রকে গুলি করে হত্যা

নূর নিউজ