সন্ধ্যার পর মহল্লার রাস্তায় কোনো শিক্ষার্থী পেলেই আইনি ব্যবস্থা: চাঁদপুর মডেল থানার ওসি

সন্ধ্যার পর পাড়া-মহল্লার রাস্তায় কোনো শিক্ষার্থী পেলেই আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে বলে ঘোষণা দিলেন চাঁদপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মুহাম্মদ আব্দুর রশিদ। তিনি বলেন, সন্ধ্যার পর পাড়া-মহল্লার রাস্তায় কোনো শিক্ষার্থী পেলেই আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পুলিশের চলমান এই অভিযান অব্যাহত থাকবে।

মঙ্গলবার (২ মার্চ) সন্ধ্যা থেকে রাত নয়টা পর্যন্ত কিশোর গ্যাং অপরাধ প্রতিরোধ এবং মাদকবিরোধী অভিযান চালাতে গিয়ে চাঁদপুর শহরের বিভিন্নস্থান থেকে ৪৭ জনকে আটক করার পর এ কথা বলেন তিনি। চাঁদপুর সদর মডেল থানা পুলিশ কয়েকটি দলে বিভক্ত হয়ে এ অভিযান পরিচালনা করে।

মুহাম্মদ আব্দুর রশিদ এর নেতৃত্বে শহরের চাঁদপুর প্রেসক্লাবের পেছনে ডাকাতিয়া নদীপাড় থেকে অভিযান শুরু হয়ে নাম্বার কয়লা ঘাট, স্ট্যান্ড রোড, বেদে পল্লী, ছায়াবাণী রোড, নতুন আলিম পাড়া, প্রতাপসাহা রোড, মিশনরোড বালুর মাঠ এবং ট্রাকরোড এই অভিযান পরিচালিত হয়।

ওসি আব্দুর রশিদ আরো বলেন, চাঁদপুরবাসীকে কিশোর গ্যাংমুক্ত একটি শহর উপহার দিতে চাই। এই জন্য কিশোরদের অভিভাবকদের জানাতে চাই, আপনার সন্তানের ওপর নজর রাখুন। কোন অবস্থাতেই তারা যেন অকারণে সন্ধ্যার পর বাসার বাইরে বের না হয়।

একই সঙ্গে মাদক ও কিশোর গ্যাং বিষয়ে কোনো ধরনের অপরাধ সংগঠিত হওয়ার লক্ষণ দেখা মাত্রই চাঁদপুর সদর মডেল থানা পুলিশকে জানানোর অনুরোধ জানান তিনি। আটককৃতদের যাচাই বাছাইয়ের পর অভিবাবকদের থানায় ঢেকে এনে সর্তক করে দেওয়া হবে।

অভিযানে চাঁদপুর মডেল থানার পুলিশ পরিদর্শক (ইন্টিলিজেন্স) মনির আহম্মেদসহ পুলিশ সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, গত কয়েক মাস আগে চাঁদপুর শহরে কিশোর গ্যাংয়ের হাতে আরেক কিশোর খুন হয়। এছাড়া বেশ কয়েকটি সংঘর্ষে আরো কয়েক কিশোর আহত হয়। এরপরই নড়েচড়ে বসে পুলিশ। এই জন্য জেলা পুলিশ সুপার মাহবুবুর রহমান কিশোর গ্যাং চিহ্নিত করতে একটি ডাটাবেইজ তৈরি শুরু করেন। সেই ধারা ধরেই সদর মডেল থানা পুলিশ কিশোর গ্যাং ধরতে এমন অভিযান শুরু করে।

এ জাতীয় আরো সংবাদ

পাকিস্তানের আনুষ্ঠানিকভাবে ক্ষমা চাওয়া উচিত

নূর নিউজ

পীরজঙ্গী মাদরাসার মুহতামিম মাওলানা ছফিউল্লাহ আর নেই

আনসারুল হক

দুর্বল পররাষ্ট্রনীতির কারণেই মিয়ানমার সীমান্তে গোলাগুলির ধৃষ্টতা দেখাচ্ছে

নূর নিউজ